ক্রীড়ালেখনীর সুবর্ণজয়ন্তীতে সম্মাননা পেলেন পাঁচ অগ্রজ সাংবাদিক

পাঁচ বিরলপ্রজ ক্রীড়া সাংবাদিক এবং লেখককে আজ সম্মাননা দিয়েছে বাংলাদেশ স্পোর্টস প্রেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএসপিএ)। যারা ইতিমধ্যে ক্রীড়া বিষয়ক সাংবাদিকতা এবং লেখালেখির ৫০ বছর পার করেছেন সেরকম পাঁচজন ব্যক্তিত্বকে সম্মানিত করতে পেরে বিএসপিএ নিজেই সম্মানিত বোধ করছে। সম্মাননাপ্রাপ্তরা হলেন- মুহাম্মদ কামরুজ্জামান, আব্দুল তৌহিদ, আজম মাহমুদ, ইকরামউজ্জমান এবং এমএ হান্নান খান। বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সম্মাননাপ্রাপ্তদের হাতে শুভেচ্ছা স্মারক ক্রেস্ট এবং উপহার তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রবীণ সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এবং ক্রীড়ালেখক কামাল লোহানী এবং তাঁদের ব্লেজার পড়িয়ে দেন বিএসপিএ সভাপতি মোস্তফা মামুন।

ক্রীড়ালেখনীর সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত সম্মাননা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি কামাল লোহানী যে সকল ক্রীড়া সাংবাদিক এবং ক্রীড়াবিদ মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হয়েছেন তাদের স্মরণ করে বলেন, তাদের দেখানো পথ ধরেই ক্রীড়া সাংবাদিকতা এখন পেয়েছে ব্যপকতা। তিনি আরও বলেন, ‘নতুন প্রজন্মের ক্রীড়া সাংবাদিকরা আমার কাছে অনুপ্রেরণার উৎস। তবে হালের কমেন্ট্রি বা ধারাভাষ্যের মান কমে গেছে আমার বিবেচনায়। তিনি বলেন, ‘খেলাবিষয়ক লেখালেখি নিয়ে জীবনের পঞ্চাশটি বছর বা তারও বেশি সময় পার করে দেওয়াটা যে কোনো বিবেচনায় একটি অনন্য কৃতিত্বের। আর সেই বিরলপ্রজ ক্রীড়াসাংবাদিক ও ক্রীড়ালেখকদেরকে তাঁদের প্রাপ্য সম্মান বুঝিয়ে দিয়ে বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতি (বিএসপিএ) তার দায়িত্ব পালন করে ধন্য হয়েছে। কারণ এমন কীর্তিমানদের সম্মানিত করতে পারাটাও অনন্য মর্যাদার।’ সম্মাননা প্রাপ্ত মুহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, ‘নিয়তিই আমাকে ক্রীড়া সাংবাদিকতায় টেনে নিয়েছে।’ আবদুল তৌহিদ বলেন, ‘এ জাতীয় সম্মাননা পেয়ে আমি কৃতজ্ঞ, আমি কৃতার্থ।’ আজম মাহমুদ বলেন, ‘আমি ১৯৯৭ সালে এএফসি পুরস্কার পেলেও আজকের এ সম্মাননা আমার কাছে অনেক বড়।’ ইকরামউজ্জমান যোগ করেন, ‘জন্মলগ্ন থেকে আমি যে সংগঠনের সাথে জড়িত, সেই সংগঠনই আমাকে সম্মানিত করলো। এমএ হান্নান খান তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘দৈবক্রমে ক্রীড়া সাংবাদিকতায় এলেও আজকের সম্মাননা অনন্য।’

বিএসপিএ সভাপতি মোস্তফা মামুন বলেন, ‘বিএসপিএ এখন অনেক সৃষ্টিশীল কাজের সঙ্গে জড়িত। এসব কাজের জন্য আমরা এখন অনেক পরামর্শ পাই, যা আমাদেরকে উৎসাহিত করে।’ অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য রাখেন আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান এবং বিএসপিএ’র সহ-সভাপতি শেখ সাইফুর রহমান। 
 

Read More...

ম্যাক্স-বিএসপিএ  বর্ষসেরা সাংবাদিক নোমান মোহাম্মদ

ম্যাক্স বিএসপিএ নাইট ২০১৮’র বর্ষসেরা সাংবাদিকের স্বীকৃতি পেয়েছেন কালের কন্ঠের সিনিয়র রিপোর্টার নোমান মোহাম্মদ। আজ ফারস রিসোর্টস অ্যান্ড হোটেলের সিঁদুরপুর হলে আয়োজিত জমকালো পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তার হাতে পুরষ্কার তুলে দেন দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবল ফেডারেশন ও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি ও সাবেক কৃতী ফুটবলার কাজী মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। বিএসপিএ সভাপতি মোস্তফা মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ম্যাক্স গ্র“পের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার  গোলাম মোহাম্মদ আলমগীর। সাবেক সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুজ্জামান রাজীবের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিএসপিএর সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত আহমেদ আনন্দ।

এবারই পরিসর বেড়েছে ম্যাক্স-বিএসপি অ্যাওয়ার্ডের। যুক্ত হয়েছেন ফটোসাংবাদিক ও অন্য দুই ক্রীড়াসাংবাদিক সংগঠনের সদস্যরাও। পুরষ্কারের মঞ্চেও তাদের গর্বিত পদচারণা। সেরা সাক্ষাৎকারের জন্য আতাউল হক মল্লিক ট্রফি জিতেছেন কালের কন্ঠ পত্রিকার বিশেষ প্রতিনিধি সনৎ বাবলা। রানার আপ একই প্রতিষ্ঠানের নোমান মোহাম্মদ ও মাসুদ পারভেজ। বর্ষসেরা এক্সক্লুসিভ রিপোর্টের জন্য বদি-উজ-জামান ট্রফি পেয়েছেন এটিএন নিউজের শেখ আশিক। রানার আপ হয়েছেন নোমান মোহাম্মদ ও চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের রিয়াসাদ আজিম। সেরা সিরিজ রিপোর্টের জন্য আব্দুল হামিদ ট্রফি জিতেছেন নোমান মোহাম্মদ, রানার্স আপ শামীম চৌধুরি ( এশিয়ানমেইল২৪ ডটকম) ও মাসুদ আলম (প্রথম আলো)। সেরা ফিচার রিপোর্ট/ ডকুমেন্টারির জন্য রণজিৎ বিশ্বাস ট্রফি জিতেছেন ক্রিকইনফোর বাংলাদেশ প্রতিনিধি মোহাম্মদ ইসাম। রানার্স আপ রানা আব্বাস, শাহজাহান কবীর ও সনৎ বাবলা। সেরা আলোকচিত্রের জন্য বদরুল হুদা ট্রফি জিতেছেন নিউ এজ পত্রিকার সৌরভ লষ্কর। রানার আপ মীর ফরিদ ও প্রথম আলোর শামসুল হক টেংকু। বিশেষ স্বীকৃতি পেয়েছেন রাহেনুর ইসলাম, ফয়সাল তিতুমীর, রাশেদুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম রনি ও রফিকুল হায়দার ফরহাদ।


এক নজরে
বদরুল হুদা চৌধুরি ট্রফি (সেরা ফটোগ্রাফ)- সৌরভ লস্কর
রণজিৎ বিশ্বাস ট্রফি (সেরা ফিচার/ডকুমেন্টারি)- মোহাম্মদ ইসাম
আব্দুল হামিদ ট্রফি ( সেরা সিরিজ রিপোর্ট)-নোমান মোহাম্মদ
বদি-উজ-জামান ট্রফি (সেরা এক্সক্লুসিভ রিপোর্ট)- শেখ আশিক
আতাউল হক মল্লিক ট্রফি (সেরা সাক্ষাৎকার) সনৎ বাবলা
বর্ষসেরা ক্রীড়াসাংবাদিক- নোমান মোহাম্মদ

 

মার্সেল-বিএসপিএ স্পোর্টস কার্নিভাল সমাপ্ত

মার্সেল-বিএসপিএ স্পোর্টস কার্নিভালে সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জিতলেন কবিরুল ইসলাম। প্রথম রানার্সআপ হন আরিফ সোহেল আর দ্বিতীয় রানার্সআপ শামীম হাসান। কার্নিভালের সাতার ও ব্যাডমিন্টন ইভেন্টে চ্যাম্পিয়ন, ক্যারম এককে রানারআপ ও ডাবলসে তৃতীয় হয়ে, স্পোর্টস ম্যান অব দ্যা ইয়ার-২০১৮ পুরস্কার?ও জিতে নেন কবির। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম কমপ্লেক্সের বিভিন্ন ভেন্যুতে সাতদিনের এই কার্নিভালে, ৮টি ডিসিপ্লিনের ১১টি ইভেন্টে অংশ নেন বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতি-বিএসপিএ’র শতাধিক সদস্য। দুপুরে শহীদ ক্যাপ্টেন মনসুর আলী হ্যান্ডবল স্টেডিয়ামে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন, স্পন্সর প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর ইকবাল-বিন আনোয়ার। এ সময় বিএসপিএ সভাপতি মোস্তফা মামুন, সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত আহমেদ আনন্দ ?ও বিএসপিএ’র সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। খবর বিজ্ঞপ্তির।

মোস্তফা মামুন সভাপতি-সুদীপ্ত আহমদ আনন্দ সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত

বাংলাদেশ স্পোর্টস প্রেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএসপিএ)’র দ্বিবার্ষিক সাধারণ সভা ও নির্বাচন ২০১৭ ২০ জানুয়ারি, ২০১৭ শনিবার বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন (বিওএ) অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মোস্তফা মামুন। সাধারণ সম্পাদকের রিপোর্ট উপস্থাপন করেন সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ান উজ জামান। আর্থিক হিসাব উপস্থাপন করেন অর্থ সম্পাদক সুদীপ্ত আহমদ আনন্দ। সাংগঠনিক রিপোর্ট উপস্থাপন করেন সাংগঠনিক সম্পাদক সামন হোসেন। সংশোধন সাপেক্ষে যা সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদন পায়। এরপর মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন সাধারণ সদস্যরা। একই দিন ২০১৮-১৯ মেয়াদের জন্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বাকি সব পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচন সম্পন্ন হলেও সহ সভাপতি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে পরাগ আরমান (১২৮ ভোট) ও শেখ সাইফুর রহমান (১০৬ ভোট) নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচন পরিচালনা করেন বিমান ভট্টাচার্য (প্রধান নির্বাচন কমিশনার), মোফাখখারুল ইসলাম দিলখোশ, মোস্তাক আহমেদ ও ইয়াহিয়া মুন্না (নির্বাচন কমিশনার)।

পূর্ণাঙ্গ কমিটি: মোস্তফা মামুন (সভাপতি), পরাগ আরমান ও শেখ সাইফুর রহমান (সহ সভাপতি), সুদীপ্ত আহমদ আনন্দ (সাধারণ সম্পাদক), আশরাফ হোসেন মিথুন ও সামন হোসেন (যুগ্ম সম্পাদক), রাহেনুর ইসলাম (অর্থ সম্পাদক), কবিরুল ইসলাম (সাংগঠনিক সম্পাদক), জিয়াউদ্দিন সাইমুম (দপ্তর সম্পাদক), ইকরামউজ্জমান, খায়রুল ইসলাম শাহীন, আমিনুল হক মল্লিক, সাহাবউদ্দিন সাহাব, কাজী শহীদুল আলম, তালহা বিন নজরুল, রাকীবুর রহমান, রাশিদা আফজালুন্নেছা, রফিকুল ইসলাম মিয়া ও মাহবুব সরকার।

বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদ সাকিব আল হাসান – কুল-বিএসপিএ স্পোর্টস অ্যাওয়ার্ড 

জমকালো আয়োজনে হয়ে গেলো কুল-বিএসপিএ স্পোর্টস অ্যাওয়ার্ড ২০১৭’র পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। যেখানে ২০১৭ সালের বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদের পুরস্কার জিতে নিয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার, বাংলাদেশের ওয়ানডে ও টি টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তিনি পেছনে ফেলেছেন এশিয়ান এয়ারগান চ্যাম্পিয়নশিপে দশ মিটার এয়ার রাইফেল ইভেন্টের জুনিয়র বিভাগে রৌপ্যজয়ী অর্নব সারার লাদিফ ও ফুটবলার জাফর ইকবালকে। সাকিব ২০১৭ সালে টেস্টে ৬৬৫ রান ও ২৯ উইকেট নিয়েছেন। এর মধ্যে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ডাবল সেঞ্চুরি, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১০ উইকেট নিয়েছিলেন। ওয়ানডেতে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্সেও আছে শতরান, মাহমুদুল্লাহর সঙ্গে ২২৪ রানের জুটি।

বাণিজ্য মন্ত্রী জনাব তোফায়েল আহমেদ এমপি বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদের নাম ঘোষণা করেন ও ট্রফি ও সার্টিফিকেট তুলে দেন। উপস্থিত ছিলেন বিশ্ব ক্রীড়া সাংবাদিক সংস্থার এশিয়া অঞ্চলের (এআইপিএস) সহ সভাপতি জনাব সাবা নায়েকে, স্কয়ার টয়লেট্রিজের হেড অব মার্কেটিং মালিক মোহাম্মদ সাঈদ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ স্পোর্টস প্রেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএসপিএ) সভাপতি জনাব মোস্তফা মামুন।

দর্শক ভোটে পপুলার চয়েজ অ্যাওয়ার্ড-এ বছরের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলোয়াড়ের পুরস্কার জিতে নিয়েছেন মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। 

এছাড়া বর্ষসেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান, বর্ষসেরা ফুটবলার জাফর ইকবাল, বর্ষসেরা দাবাড়– এনামুল হোসেন রাজীব, বর্ষসেরা টেবিল টেনিস খেলোয়াড়, সোনম সুলতানা সোমা, বর্ষসেরা শ্যূটার অর্নব সারার লাদিফ, বর্ষসেরা সাঁতারু জোনায়না আহমেদ, উদীয়মান অ্যাথলেট জহির রায়হান, বর্ষসেরা কোচ সালাউদ্দিন (ক্রিকেট), বর্ষসেরা সংগঠক মাহফুজা আক্তার কিরণ (ফুটবল), তৃণমূলের ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব মফিজ উদ্দিন (ফুটবল), বর্ষসেরা স্পন্সর রবি, বিশেষ সম্মাণনা সালাম মুর্শেদী (ফুটবল) ও বাদল রায় (ফুটবল) পুরস্কৃত হয়েছেন।

কুল-বিএসপিএ স্পোর্টস অ্যাওয়ার্ডকে কেন্দ্র করে ক্রীড়াঙ্গনের তারার মেলা বসেছিল প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে। বিভিন্ন খেলার সাবেক-বর্তমান তারকারা ছাড়াও যেখানে উপস্থিত ছিলেন ক্রীড়া সংগঠক, বিভিন্ন ফেডারেশনের কর্মকর্তারা। উপস্থিত ছিলেন ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন, সাবেক ফুটবলার আশরাফউদ্দিন আহমেদ চুন্নু, জাকারিয়া পিন্টু, কায়সার হামিদ, ইলিয়াস হোসেন, সত্যজিত দাস রুপু, ক্রীড়া সংগঠক তরফদার রুহুল আমিন, সাবেক ক্রিকেট অধিনায়ক রকিুবুল হাসান, ক্রিকেট কোচ নাজমুল আবেদীন ফাহিম, জালাল আহমেদ চৌধুরী, সংগঠক রইস উদ্দিন আহমেদ, হকি তারকা আব্দুস সাদেক, সাতবারের দ্রুততম মানব মোশাররফ হোসেন শামীম, সাবেক অ্যাথলেট সাইদুর রব, শামীমা সাত্তার মিমু, সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শিলা, ভারোত্তলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত, সাবেক শ্যুটার সাবরিনা সুলতানা, সাবেক ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় কামরুন্নাহার ডানা, দাবাড়– গ্র্যান্ডমাস্টার নিয়াজ মোরশেদ, রানী হামিদ, সাবেক টেবিল টেনিস খেলোয়াড় সাইদুর রহমান সাদী, দক্ষিণ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক হেলাল।

অনুষ্ঠানে ভিন্নধর্মী পারফরম্যান্স দেখান বিকেএসপির জিমন্যাস্টরা। সঙ্গীতের মূচ্ছর্ণার সাথে তাদের শারীরিক কসরত চোখ ধাঁধিয়ে দেয় উপস্থিত দর্শকদের। এছাড়া সঙ্গীত পরিবেশন করেন জাতীয় দলের ফুটবলার ওয়ালি ফয়সাল। তার কন্ঠে ’আমরা করবো জয়’ গানটি দেশের ক্রীড়াঙ্গনে সাফল্য আনতে নতুনভাবে উদ্দীপ্ত করে। এছাড়া ফ্রি স্টাইল ফুটবলের কৌশল দেখান ময়মনসিংহের ছেলে মুদাব্বির। আর নাচের তালে শিল্পীরা বিভিন্ন খেলাকে ফুটিয়ে তোলেন।

দেশের ক্রীড়া সাংবাদিক ও ক্রীড়া লেখকদের সবচেয়ে পুরনো সংগঠন বাংলাদেশ স্পোর্টস প্রেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএসপিএ) ১৯৬৪ সাল থেকে সেরা ক্রীড়াবিদ ও ক্রীড়া সংশ্লিষ্টদের পুরস্কৃত করার ধারা চালু করেছিল। 

বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদের সংক্ষিপ্ত তালিকায় সাকিব অর্ণব জাফর

দেশের ক্রীড়া সাংবাদিক ও ক্রীড়া লেখকদের সবচেয়ে পুরনো সংগঠন বাংলাদেশ স্পোর্টস প্রেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএসপিএ), যা বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতি হিসেবে সুপরিচিত। ১৯৬২ সালে সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হবার দুই বছর পর অর্থাৎ ১৯৬৪ সাল থেকে সেরা ক্রীড়াবিদ ও ক্রীড়া সংশ্লিষ্টদের পুরস্কৃত করার ধারা চালু করেছিল। অর্ধশতাব্দিরও বেশি সময় ধরে কয়েকশত ব্যক্তি, সংস্থা, প্রতিষ্ঠান পেয়েছে মর্যাদার এই পুরস্কার।

তারই ধারাবাহিকতায় আগামী ৬ জানুয়ারি, ২০১৮ জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ২০১৭ সালের সেরাদের পুরস্কার তুলে দেয়া হবে। ২০১৭ সালের পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে এ বছর ১৪টি ক্যাটেগরিতে পুরস্কার দেয়া হবে। বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদের সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান, শ্যুটার অর্ণব সারার লাদিফ ও ফুটবলার জাফর ইকবাল। বিএসপিএ’র জুরি বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী একজনকে বেছে নেয়া হবে বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদ হিসেবে। এবছর থেকে তৃণমূলের ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব ক্যাটেগরিতে একজনকে পুরস্কৃত করার ধারা চালু করেছে বিএসপিএ। প্রথমবার এই পুরস্কার পাচ্ছেন কলসিন্দুরের ফুটবল বিপ্লবের নেপথ্য কারিগর মফিজুল হক। 

এছাড়া গত দুইবারের ধারাবাহিকতায় পপুলার চয়েজ অ্যাওয়ার্ডের জন্যও বিএসপিএ-এর ওয়েবসাইটে চলছে ভোটিং। যেখানে সংক্ষিপ্ত তালিকায় আছেন ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা, টেস্ট ও টি টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান, ক্রিকেটার মাহমুদুল্লাহ ও ফুটবলার জাফর ইকবাল। সর্বোচ্চ ভোটপ্রাপ্ত ক্রীড়াবিদ পাবেন এই পুরস্কার।

গত দুইবারের ধারাবাহিকতায় এবারো স্কয়ার টয়লেট্রিজ লিমিটেড বিএসপিএ স্পোর্টস অ্যাওয়ার্ড পৃষ্ঠপোষকতা করছে। তাদের ব্র্যান্ড কুল-এর নামে যার নামকরণ কুল-বিএসপিএ স্পোর্টস অ্যাওয়ার্ড। যা বাংলাদেশের সবচেয়ে আকর্ষণীয়, মর্যাদার ও জমকালো ক্রীড়া পুরস্কার।

এ উপলক্ষে সোমবার জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএসপিএ সভাপতি মোস্তফা মামুন, সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ান উজ জামান রাজিব, সাংগঠনিক কমিটির চেয়ারম্যান হাসানউল্লাহ খান রানা, জুরি বোর্ডের চেয়ারম্যান তালহা বিন নজরুল ও স্কয়ার টয়লেট্রিজ লিমিটেডের মার্কেটিং ম্যানেজার ফজল মাহমুদ রনি।
 

শুরু হচ্ছেপপুলার চয়েজ অ্যাওয়ার্ড

বছর ঘুরে ফিরে এলো কুল-বিএসপিএ স্পোর্টস অ্যাওয়ার্ড। আগামী বছর ৬ জানুয়ারি জমকালো আয়োজনে তুলে দেয়া হবে ২০১৭ সালের সেরাদের পুরষ্কার।বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী এই পুরস্কার শুরু হয়েছিল ১৯৬৪ সালে।

গত দুই বছরের ধারাবাহিকতায় এবারো বিএসপিএ অ্যাওয়ার্ড পৃষ্ঠপোষকতা করছে দেশের অন্যতম বৃহৎ করপোরেট প্রতিষ্ঠান স্কয়ার গ্রুপ। তাদের ব্র্যান্ড কুল-এর সৌজন্যে বিএসপিএ অ্যাওয়ার্ড নামকরণ করা হয়েছে কুল-বিএসপিএ অ্যাওয়ার্ড।

এবারো থাকছে পপুলার চয়েজ অ্যাওয়ার্ড। যেখানে স্পোর্টস ফ্যানদের ভোটে বেছে নেয়া হবে সেরাকে। যার কার্যক্রমের প্রথম ধাপ শুরু হচ্ছে আগামীকাল ৬ ডিসেম্বর, বুধবার।

এবারো দুইধাপে হবে পপুলার চয়েজ অ্যাওয়ার্ড।

১.    দর্শক মতামত
২.    দর্শক পছন্দের সেরা খেলোয়াড়ের ভোটিং

পৃথিবীর যেকোন প্রান্ত থেকে ২০১৭ সালের সেরা ক্রীড়াবিদের নাম প্রস্তাব করতে পারবেন। ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে প্রথম ধাপের ভোটিং। যে কেউ বেছে নিতে পারবেন তার পছন্দের ফাইনালিস্ট। শুধুমাত্র বিএসপিএ ওয়েবসাইট www.bspa.com.bd -তে গিয়ে মন্তব্য জানানো যাবে।

সবার মতামতের ভিত্তিতে সেরাদের নিয়ে দ্বিতীয় দফা ভোটিং শুরু হবে ২০১৭ সালের ১৬ ডিসেম্বর। সর্বোচ্চ ভোটপ্রাপ্ত ক্রীড়াবিদ পাবেন পপুলার চয়েজ অ্যাওয়ার্ড। যা ঘোষণা ও তুলে দেয়া হবে কুল-বিএসপিএ অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে।

প্রতিদিন লটারির মাধ্যমে ভোটদাতাদের মধ্য থেকে বিজয়ী বেছে নিয়ে দেয়া হবে আকর্ষণীয় পুরস্কার।

 

Photo Gallery

Glorious Moment

More Photos